আজ শনিবার | ২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ইং
| ৭ মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী | সময় : সকাল ৬:৫৫

মেনু

বাংলাদেশির গল্প পড়বে সিঙ্গাপুর

বাংলাদেশির গল্প পড়বে সিঙ্গাপুর

মনির আহমদ, সিঙ্গাপুর থেকে
বুধবার, ০১ নভেম্বর ২০১৭
৬:২২ অপরাহ্ণ
380 বার

সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাংলাদেশি শরিফ উদ্দিন-এর জীবন ও কর্ম নিয়ে লেখা প্রবন্ধগ্রন্থ শীঘ্রই পড়বে সিঙ্গাপুরের মানুষ। কর্ম অবকাশে প্রবাস জীবনের স্বপ্ন, সাফল্য, ও বেদনার শব্দগুলির সমন্বয় হচ্ছে এই বই, যার নামকরণ করা হয়েছে ‘ Stranger to Myself ‘ বা অচেনা আমি।
স্থানীয় সময় ৪ নভেম্বর শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় বইয়ের মোড়ক উন্মোচন হবে বুগিজে অবস্থিত জাতীয় গ্রন্থাগার-এর ১৬তলার হলরুমে।

বাংলায় লেখা বইটির ইংরেজি ভাষান্তর ও সম্পাদনা শেষে প্রকাশ করেছে সিঙ্গাপুরের প্রকাশনী ল্যান্ডমার্ক।
বই প্রকাশ নিয়ে লেখক শরিফ উদ্দিন জানান
“এই অনুভূতির ভাষা থাকে না, মনে পড়ে আমার সন্তানের কথা, এমন অনুভূতি হয়েছিল
যখন প্রথম সন্তান ভূমিষ্ঠের খবর শুনেছিলাম।
সিঙ্গাপুরের মানুষের প্রতি আমার অফুরন্ত ভালোবাসা।”

বইটির ফরোয়ার্ড করেছেন সিঙ্গাপুরের স্বনামধন্য লেখক গুই লাই সুই, সম্পাদনা করেছেব থেওপি কেউইক। “Stranger to Myself” বাংলা থেকে ইংরেজিতে ভাষান্তর করেন রনক জামান, শিভাজি দাস, দেবব্রত বসু ও ইমরুল হাসান।

বইটিতে স্থান পেয়েছে ২০০৮থেকে ২০১৬ পর্যন্ত প্রবাসী জীবন সংক্রান্ত অন্যান্য প্রসঙ্গ।
১১১ টি ছোট প্রবন্ধের সমন্বয়ে ১৭৬পৃষ্ঠার বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে আধুনিক সিঙ্গাপুরের প্রতিষ্ঠাতা লি কুয়ান ইউকে। উৎসর্গ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে লেখক জানান ”মিশ্র ভাষা ও সংস্কৃতির চমৎকার একটি দেশ সিঙ্গাপুর। আমাদের নিরাপদ জীবিকার জন্য খুব সুন্দর কিছু ক্ষেত্র রেখে গেছেন আধুনিক সিঙ্গাপুরের প্রতিষ্ঠাতা লি কুয়ান ইউ, তাই বইটি তাকেই উৎসর্গ করা।”

বইয়ের পাতায় পরবাসী ঘ্রাণ আর প্রচ্ছদে এক অপরূপ বাংলাদেশ।
লেখক নিজেই সেখানে প্রচ্ছদ, শরীরে বয়ে বেড়ায় বাংলাদেশ।
পরনে লাল শার্ট আর কাঁধে সবুজ ব্যাগ,
ইংরেজি নামলিপির বর্ণমালায় লাল -সবুজের সমারোহ সহজেই স্মরণ করিয়ে দেয় আমাদের পতাকার কথা।
বইটি পড়ে যেমন প্রবাসিরা নতুন করে চিনতে পারবে নিজেকে, অন্যরাও জানবে বাংলাদেশির পরবাসী জীবন।

লেখক ও কবি শরীফ উদ্দিন-এর জন্ম বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলার দিলালপুর গ্রামে। জীবিকার তাগিদে স্থানীয় বাজারে বই বিক্রয়ের পেশা গ্রহণ করেন, গড়ে তোলেন শরীফ লাইব্রেরি।
সেই থেকেই তার লেখালেখির প্রতি প্রেম ও বন্ধন গড়ে ওঠে। সিরামিকের উপর ডিপ্লোমা শেষে ২০০৮ সালে পাড়ি জমান সিঙ্গাপুরে।
২০১২ সালে সিঙ্গাপুর প্রবাসী সাহিত্যপ্রেমীদের প্রকাশিত কাব্য সংকলনে স্থান পায় তার কবিতা।দক্ষিণ -পূর্ব এশিয়ার অন্যতম মাসিক পত্রিকা বাংলার কণ্ঠের প্রদায়ক ছিলেন কয়েক বছর। সেসময় ডায়রি আকারে বইয়ের বেশকিছু পর্ব নিয়মিত প্রকাশিত হয়েছে বাংলার কণ্ঠে। ২০১৪ সালে সিঙ্গাপুরের জনপ্রিয় অভিবাসী কবিতা প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে নির্বাচিত হয় তার কবিতা ‘শ্রমিকের পথচলা’।
সেই কবিতা নিয়ে ২০১৫ সালের ১৯শে মার্চ বিবিসিতে প্রকাশিত হয় তার জীবনী ও কবিতা বিষয়ক তথ্যচিত্র।
২০১৬তে সিঙ্গাপুরের স্বনামধন্য লেখক গুই লাই সুই সম্পাদিত ‘লেখার দেশ; সাহিত্যে সিঙ্গাপুরের ইতিহাস’ বইয়ে স্থান পায় লিটল ইন্ডিয়ার রায়ট নিয়ে লেখা তার কবিতা ‘ভেলু ও ইতিহাস’। সাহিত্যপ্রেমী বন্ধুদের নিয়ে গঠিত সিঙ্গাপুর বাংলা সাহিত্য পরিষদ থেকে বাংলা ও ইংরেজিতে প্রকাশিত ‘পরবাসীকথা’ কবিতা সংকলনে স্থান পেয়েছে তার দুইটি কবিতা।
এই বছরের নভেম্বরে সিঙ্গাপুর রাইটার্স ফেস্টিভ্যালে থাকবে তার জীবন ও সাহিত্য নিয়ে বিশেষ আলোচনা পর্ব।

তিনি সিঙ্গাপুরের বেশকিছু সাংস্কৃতিক সংগঠনের দায়িত্ব পালন করেন, ছিলেন সাহিত্য সংগঠন বাংলার কণ্ঠ সাহিত্য পরিষদ-এর সিনিয়র সহ সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক।
তিনি সিঙ্গাপুর বাংলা সাহিত্য পরিষদ-এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।

সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন
Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedInPrint this page

মন্তব্য

comments

শেয়ার করুন
error: Content is protected !!