আজ শনিবার | ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
| ৭ আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১০ মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী | সময় : রাত ২:০৪

মেনু

শরীয়তপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় মসজিদের ইমামসহ আহত-৫, আটক ২

শরীয়তপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় মসজিদের ইমামসহ আহত-৫, আটক ২

সিনিয়র রিপোর্টার
বুধবার, ০৮ নভেম্বর ২০১৭
১:০৫ অপরাহ্ণ
558 বার

শরীয়তপুর সদর উপজেলার চন্দ্রপুরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় এক মসজিদের ইমামসহ ৫জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ কেবল নগর গ্রামের ছালাম বেপারীর দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, মাওলানা ফরিদ কোতোয়াল (৪০), আনোয়ার ফকির (৪২), জাকির হোসেন দেওয়ান (৫৫), ইউনুস মুন্সী (৪৫) ও ইউসুফ মুন্সী (৩৮)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত দুই মাস আগে সীমানার গাছ ও জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সদর উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ কেবল নগর গ্রামের রতন ফকিরের (৪২) সঙ্গে ভাতিজা আনোয়ার ফকিরের (৬০) সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। গেল ৪ নভেম্বর শনিবার বিকেলে স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করা হলেও মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আনোয়ার ফকিরকে রাস্তায় একা পেয়ে রতন ফকিরের সমর্থকরা ছুরি, বাঁশ ও হাতুড়ি দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় আনোয়ারকে উদ্ধার করতে গেলে স্থানীয় দক্ষিণ কেবল নগর ফকির বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা ফরিদ কোতোয়াল, জাকির হোসেন দেওয়ান, ইউনুস মুন্সী, ইউসুফ মুন্সীকেও মেরে আহত করা হয়।

স্থানীয়রা আহত মাওলানা ফরিদ কোতোয়াল ও আনোয়ার ফকিরকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের দুজনকে ঢাকা মেডিকেলে রেফার্ড করেন। আর বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। এ নিয়ে এলাকায় উভয় পক্ষের মধ্যে আবারও উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং কালাচাঁন কবিরাজ (৭০) ও আলফু কবিরাজ (৬০) নামে দুজনকে আটক করেন।

আনোয়ার ফকির বলেন, সকালে মাদারীপুরের সিবচর উত্রাইল বাজারে গরু কিনতে যাওয়ার সময় রতন ফকিরের সমর্থকরা আমার উপর হামলা চালায়। আমার মাথায় কয়েকটি হাতুড়ি দিয়ে বাড়ি দিলে আমি অজ্ঞান হয়ে পরি। পরে কি হয়েছে জানি না। ওরা আমার কাছে থাকা দুই লাখ টাকা নিয়ে যায়।

এব্যাপারে রতন ফকিরের সাথে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

টাউন চিকন্দী ফাঁড়ি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম রশিদুল বাড়ি বলেন, চাচা-ভাতিজার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সীমানার গাছ ও জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলছে। (মঙ্গলবার) সকালে রতন ফকিরের লোকজন আনোয়ার ফকিরের উপর হামলা চালায়। এতে আনোয়ার ফকিরসহ তার লোকজন পাঁচজন আহত হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করে ফাঁড়িতে এনেছি।এ ঘটনায় পালং মডেল থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

::শেয়ার করুন::
Share on Facebook
Facebook
Share on Google+
Google+
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print
Email this to someone
email

মন্তব্য

comments




  • সর্বশেষ প্রকাশিত  
  • সর্বাধিক পঠিত  

Assign a menu in the Left Menu options.
error: Content is protected !!