আজ মঙ্গলবার | ১৯ জুন, ২০১৮ ইং
| ৫ আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৪ শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী | সময় : সন্ধ্যা ৬:২০

মেনু

পোষ্ট ই-সেন্টার ফর রুরাল কমিউনিটি প্রকল্পের কর্মচারীদের চাকুরী রাজস্বখাতে স্থানান্তরে হাইকোর্টের রুল

পোষ্ট ই-সেন্টার ফর রুরাল কমিউনিটি প্রকল্পের কর্মচারীদের চাকুরী রাজস্বখাতে স্থানান্তরে হাইকোর্টের রুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
মঙ্গলবার, ২০ মার্চ ২০১৮
৪:২৪ অপরাহ্ণ
4193 বার

বিভিন্ন জেলায় পোষ্ট-ই-সেন্টার ফর রুরাল কমিউনিটি প্রকল্পের ৭৩ জন কর্মচারীদের চাকুরী রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে চার সপ্তাহের রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। ১৯ মার্চ হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি নাঈমা হায়দার এবং বিচারপতি জাফর আহম্মেদ এর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। এর আগে আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া কর্মচারীদের পক্ষে রিট আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি এটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান শুনানীতে অংশগ্রহন করে। শুনানী শেষে বিচারক এ আদেশ দেন। রিটে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব সহ ৪ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।
রিট সুত্রে জানা যায়, পোষ্ট ই-সেন্টার ফর রুরাল কমিউনিটি প্রকল্পটি ২০১২ সালে একনেকে অনুমোদিত হলেও প্রকল্পের মূল কার্যক্রম শুরু হয় ২০১৪ সালের ১লা জানুয়ারী থেকে। ডাক বিভাগের এ প্রকল্পে ৮৫০০টি পোষ্ট অফিসে ই-সেন্টার স্থাপনের কর্মসুচীতে মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নের জন্য সিস্টেম সাপোর্ট পার্সোনাল/ট্রেইনার ৭০ জন, হার্ডওয়্যার টেকনিশিয়ান ৫৫০ জন, ড্রাইভার ১১ জন, নিরাপত্তা প্রহরী ৫০০ জনসহ মোট ১১৩১ জন কর্মচারী নিয়োগ দেওয়ার কথা থাকলেও বিভিন্ন সময়ে কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হয় ৩৯৯ জন। প্রকল্পে নিয়োজিত সিস্টেম সাপোর্ট পার্সোনাল/ট্রেইনার এবং হার্ডওয়্যার টেকনিশিয়ানগণ রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কর্মসূচী বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশর ডাক বিভাগের পুরনো ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনে এবং নতুন ই-সেবা তৈরী করে গ্রামীণ জনপদে আশার সঞ্চার করেন। কিন্তু প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ায় গ্রামীন মানুষ সেবা থেকে বঞ্চিত হয়। কর্মচারীরা বেকার হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার এ এস এম মাহমুদুর রহমান সহ সর্বমোট ৭৩ জন প্রকল্পের কর্মচারী হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করেন।

মন্তব্য

comments




  • সর্বশেষ প্রকাশিত  
  • সর্বাধিক পঠিত  

Translate »