আজ শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি
Home » টপ »

শরীয়তপুর-১ আসনে নৌকার মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন সাবেক আইজিপি শহীদুল

শরীয়তপুর-১ আসন (সদর-জাজিরা) থেকে নির্বাচন করার জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক।

শহীদুল হকের বাড়ি শরীয়তপুর-২ নির্বাচনী এলাকার নড়িয়া উপজেলার নরবালাখানা গ্রামে। তবে তিনি শরীয়তপুর-১ আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন। তার ছোট ভাই ইসমাইল হক জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নড়িয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। আরেক ভাই নুরুল হক ব্যাপারী নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে অবসরে যান পুলিশের সাবেক এই প্রধান।

মনোনয়ন ফরম নেওয়ার পর সংবাদমাধ্যমকে সাবেক এই আইজিপি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা যদি যোগ্য মনে করেন, তাহলে নির্বাচন করব। আমি আওয়ামী পরিবারের সন্তান ও কর্মজীবনে জঙ্গি দমন, হেফাজতের বিশৃঙ্খলা দমন, পেট্রোলবোমা সন্ত্রাস দমনে অনেক কাজ করেছি।”

প্রসঙ্গত, গত শনিবার মনোনয়ন ফরম বিক্রির শুরুর দিন থেকে সোমবার পর্যন্ত তিন দিনে মোট ৩,০১৯টি ফরম বিক্রি করেছে আওয়ামী লীগ। তিন দিনে ফরম বিক্রি থেকে মোট আয় হয়েছে ১৫ কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলটির কার্যালয়ে মনোনয়ন বিক্রিতে আট বিভাগের জন্য স্থাপন করা হয় ১০টি বুথ। সেখান থেকে ফরম বিক্রি করা হয়। মনোনয়ন ফরম বিক্রির এই কার্যক্রম আজ মঙ্গলবার শেষ হবে।

এবার আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরমের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ হাজার টাকা। মনোনয়ন ফরম বিক্রি শেষ হলে দলের মনোনয়ন বোর্ড যাচাই-বাছাই শেষে ৩০০ আসনে নৌকার প্রার্থী চূড়ান্ত করবে ক্ষমতাসীন দলটি।

গত ১৫ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। ইসির তথ্য অনুযায়ী, দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী বছরের ৭ জানুয়ারি। ওই দিন সকাল ৮টা থেকে টানা ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর।

মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ ১৮ ডিসেম্বর। সেদিন থেকেই প্রচারণা শুরু করতে পারবেন প্রার্থীরা। নির্বাচনে ৬৬ জন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ৫৯২ জন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

গত ২ নভেম্বর সংসদ নির্বাচনের চূড়ান্ত ভোটারসংখ্যা প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন ১১ কোটি ৯৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৩৩ জন ভোটার। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৯ জন এবং নারী ভোটার ৫ কোটি ৮৯ লাখ ১৯ হাজার ২০২ জন। আর হিজড়া ভোটার রয়েছেন ৮৫২ জন। সম্ভাব্য ভোটকেন্দ্র ৪২ হাজার ১০৩টি এবং ভোটকক্ষ ২ লাখ ৬১ হাজার ৯১২।

তফসিল ঘোষণার পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করলেও বিএনপি ও সমমনা দলগুলো হরতাল-অবরোধের মত কর্মসূচিতে রয়েছে।

এদিকে সোমবার নির্বাচন কমিশনার রাশেদা সুলতানা জানিয়েছেন, তারা চান সব দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক। বিএনপিসহ নির্বাচনের বাইরে থাকা দলগুলো যদি নির্বাচনে আসে তবে তফসিল পুনর্বিবেচনা ও সময় বাড়ানো হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।