আজ শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

স্কুটি চেপে শরীয়তপুর ঘুরে গেলেন ৪ ভ্রমণকন্যা

‘নারীর চোখে বাংলাদেশ’- স্লোগান নিয়ে ভ্রমণ কন্যারা স্কুটিতে চেপে পুরো দেশ ঘুরে বেড়াবেন আর জানান দেবে নিজের স্বাধীন সত্ত্বার।

এ ধারাবাহিকতায় রোববার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শরীয়তপুরের দর্শনীয় স্থান ঘুরে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন ট্রাভেলেটস অব বাংলাদেশ’র ভ্রমণকন্যার চার সদস্য।

গত ২৭ আগস্ট ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে যাত্রা শুরু করে পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর, ঝালকাঠি বরিশাল, মাদারীপুর ও শরীয়তপুরের দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন ও বিভিন্ন স্কুলের ছাত্রীদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন তারা। সন্ধ্যার পরে ঢাকা কেন্দ্র্রীয় শহীদ মিনারে পৌঁছানোর মাধ্যমে শেষ হবে ‘কর্ণফুলি প্রেজেন্টস নারীর চোখে বাংলাদেশ’ এর পঞ্চম পর্ব।

পঞ্চম পর্বে অংশ নেওয়া ভ্রমণকন্যারা হলেন- ট্রাভেলেটস অব বাংলাদেশ’ ভ্রমণ কন্যার প্রতিষ্ঠাতা ঢাকা মেডিকেল কলেজের ডা. সকিয়া হক, ডা. মানসী সাহা তুলি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চুড়ান্ত বর্ষের শিক্ষার্থী শামসুন নাহার সুমা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর মাঝিকাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌস শুভা।

গত ৬ এপ্রিল থেকে চার পর্বে ভ্রমণকন্যারা স্কুটিতে চেপে ২১টি জেলা পরিদর্শন করেন। পঞ্চম পর্বে আরও সাতটি জেলা পরিদর্শনের মধ্যদিয়ে মোট ২৮টি জেলা পরিদর্শন শেষ করেন ভ্রমণকন্যরা।

ভ্রমণকালে বিভিন্ন জেলার স্কুলের মেয়েদের সঙ্গে মতবিনিময় এবং খাদ্যপুষ্টি, বিভিন্ন রকম সামাজিক অসুবিধা, বয়ঃসন্ধিকালীন নানান সমস্যা, স্বাস্থ্য সচেতনতা, আত্মরক্ষা, ভ্রমণ ইত্যাদি প্রয়োজনীয় বিষয়ে আলোচনা করেন তারা।

ট্রাভেলেটস অব বাংলাদেশ- ভ্রমণকন্যার প্রতিষ্ঠাতা ডা. সকিয়া হক বলেন, ট্রাভেলেটস অব বাংলাদেশ-ভ্রমণ কন্যা বিশ্বাস করে দেশের সার্বিক উন্নয়নে সুস্থ সচেতন উদারমনা নারী সমাজের কোনো বিকল্প নেই। সঠিক শিক্ষা আর ভ্রমণই পারে নারীর দৃষ্টিভঙ্গি প্রসারিত করে তাকে মানবসম্পদে পরিণত করতে। আর এভাবেই ট্রাভেলেটস অব বাংলাদেশ নারীর সুষ্ঠু ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যেতে চায়।

তিনি আরও বলেন, এ কর্মসূচির মাধ্যমে প্রত্যেকটি জেলা ভ্রমণ এবং কিশোরীদের সচেতন করে তোলাই ট্রভেলেটস অব বাংলাদেশ- ভ্রমণ কন্যাদের উদ্দেশ্য।