শনিবার, ৮ আগস্ট, ২০২০ ইং, ২৪ শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
শনিবার, ৮ আগস্ট, ২০২০ ইং, ২৪ শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
শনিবার, ৮ আগস্ট, ২০২০ ইং

জননেতা আবদুর রাজ্জাকের জন্মদিন আজ

জননেতা আবদুর রাজ্জাকের জন্মদিন আজ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত জননেতা আবদুর রাজ্জাকের জন্মদিন আজ। তিনি ১৯৪২ সালের ১ আগস্ট শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার দক্ষিণ ডামুড্যা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম ইমাম উদ্দিন ও মা বেগম আকফাতুন্নেছা। তিনি ১৯৫৮ সালে ডামুড্যা মুসলিম উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ১৯৬০ সালে ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন এবং ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স এবং পরে মাস্টার্স পাস করেন। ১৯৬৭ সালে এলএলবি পাস করার পর ১৯৭৩ সালে আইনজীবী হিসেবে বার কাউন্সিলে নিবন্ধিত হন। আবদুর রাজ্জাক স্কুল জীবনে ছাত্র রাজনীতিতে যোগ দেন। তখন থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাহচর্যে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে স্বাধীনতা সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধের সাংগঠনিক কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। তিনি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, প্রেসিডিয়াম সদস্যসহ বিভিন্ন পদে থেকে দায়িত্ব পালন করেছেন। মুক্তিযুদ্ধে তিনি মুজিব নগর সরকারের কর্মকাণ্ডে অসামান্য অবদান রাখেন।

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম এ সংগঠক  ২০১১ সালের ২৩ ডিসেম্বর লন্ডনে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

সংগ্রামমুখর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী আব্দুর রাজ্জাক তার সমগ্র জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বাঙালির স্বাধিকার, স্বাধীনতা, শান্তি ও সামাজিক মুক্তির আন্দোলনে। ছাত্রজীবন থেকে আমৃত্যু তিনি ছিলেন বাঙালি জাতির প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে প্রথম সারির সংগঠক ও নেতা। ৬২’র শিক্ষা আন্দোলন, ৬৬’র ছয় দফা আন্দোলন, ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন।

এছাড়া তিনি ১৯৬৬-১৯৬৭ ও ১৯৬৭-১৯৬৮ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। জননেতা আব্দুর রাজ্জাক ১৯৭০ সালে প্রথমবারের মতো জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৭৩, ১৯৯১, ১৯৯৬ এবং ২০০৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হন। ১৯৯১, ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে ২টি করে আসনে সাংসদ নির্বাচিত হন। ১৯৭৯ ও ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আব্দুর রাজ্জাক পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ছিলেন ’৭১-এর ঘাতক দালাল ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গড়ে উঠা আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা।

একটি উন্নত, সমৃদ্ধ ও সুখী সুন্দর অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ে তোলার সংগ্রামে প্রয়াত জননেতা আব্দুর রাজ্জাকের অনন্য অবদান বাঙালি জাতির স্মৃতিতে অম্লান থাকবে।

মন্তব্য

comments

শরীয়তপুর নিউজে প্রকাশিত কোন তথ্য, ছবি, রেখচিত্র, আলোকচিত্র ও ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যাবহার করা নিষেধ!!


error: Content is protected !!