শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০ ইং, ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০ ইং, ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০ ইং

বসলো পদ্মা সেতুর ৩৩ তম স্প্যান, দৃশমান হলো আর ৫ কিলোমিটার

বসলো পদ্মা সেতুর ৩৩ তম স্প্যান, দৃশমান হলো আর ৫ কিলোমিটার
বসলো পদ্মা সেতুর ৩৩ তম স্প্যান, দৃশমান হলো আর ৫ কিলোমিটার
পদ্মা সেতুর ৩৩তম স্প্যান বসানো হয়েছে। সোমবার ১৯ অক্টোবর সেতুর মাওয়া প্রান্তে ৩ ও ৪ নম্বর পিয়ারের ওপর স্প্যান ১-সি বসানো হয়।এটি বসানোর পর সেতুর প্রায় ৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান হলো।সেতুর উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর এ তথ্য জানিয়েছেন। সোমবার সকাল সোয়া ৯ টার দিকে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মাওয়ায় অবস্থিত কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডের স্টিল ট্রাস জেটি থেকে স্প্যানটি বহন করে আনে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই।ক্রেন নোঙর করে পিয়ারে স্প্যান উঠানোর কার্যক্রম শুরু হয়।বেলা ১২টায় পিয়ারের ওপর স্প্যান বসানো হয়। ৩২তম স্প্যান বসানোর আট দিনের মাথায় বসলো এই স্প্যানটি।এখনও ৮টি স্প্যান বসানো বাকি আছে। জানা যায় , ২৫ অক্টোবর পিয়ার ৭ ও ৮ নম্বরের ওপর ৩৪তম স্প্যান, ৩০ অক্টোবর পিয়ার ৮ ও ৯ নম্বরের ওপর ৩৫তম স্প্যান, ৪ নভেম্বর পিয়ার ২ ও ৩ নম্বরে ৩৬তম স্প্যান, ১১ নভেম্বর পিয়ার ৯ ও ১০ নম্বরে ৩৭তম স্প্যান, ১৬ নভেম্বর পিয়ার ১ ও ২ নম্বরে ৩৮তম স্প্যান, ২৩ নভেম্বর পিয়ার ১০ ও ১১ নম্বরে ৩৯তম স্প্যান, ২ ডিসেম্বর পিয়ার ১১ ও ১২ নম্বরে ৪০তম স্প্যান ও ১০ ডিসেম্বর সর্বশেষ ৪১ নম্বর স্প্যান বসবে ১২ ও ১৩ নম্বর পিয়ারের ওপর।
৩০ হাজার ১৯৩.৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে গৃহীত এই প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৮১.৫০ ভাগ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৮৭.৫৫ ভাগ।নদী শাসন কাজের বাস্তব অগ্রগতি ৭৪.৫০ ভাগ। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ পর্যন্ত মোট ব্যয় হয়েছে ২৩ হাজার ৭৯৬.২৪ কোটি টাকা।
মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড (এমবিইসি)। আর নদী শাসনের কাজ করছে চীনের আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

মন্তব্য

comments

শরীয়তপুর নিউজে প্রকাশিত কোন তথ্য, ছবি, রেখচিত্র, আলোকচিত্র ও ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যাবহার করা নিষেধ!!


error: Content is protected !!