আজ সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯ সফর, ১৪৪৩ হিজরি
Home » টপ »

নড়িয়ায় কলেজ ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কে এম ধ্রুব (১৯) নামের এর কলেজ ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে নড়িয়া বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ আ: জলিলের বিরুদ্ধে।

রোববার (০১ আগস্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে নড়িয়া বাজার পূর্ব মাথায় এ মারধরের ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার ওই কলেজ ছাত্র নড়িয়া পৌরসভার শুভগ্রামের ওবায়দুল হকের ছেলে এবং নড়িয়া সরকারী কলেজের উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্র।

এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা চেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নড়িয়া সার্কেল), নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও নড়িয়া পৌর মেয়রের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভুগী ওই কলেজ ছাত্র।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, রোববার রাতে এশার নামাজের উদ্দেশ্যে ওই কলেজ ছাত্র বাসা থেকে বের হয়। পথে এক বন্ধুর সাথে ব্যক্তিগত বিষয়ে কথা বলছিলো। এসময় অভিযুক্ত জলিল শেখ পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় ধ্রুবকে নামাজে যাওয়ার জন্য আহবান করে। বন্ধুর সাথে কথা শেষ করেই নামাজে আসার কথা জানায় ধ্রুব। কিন্তু জলিল শেখ তা মানতে অস্বীকার করে ধ্রুবকে জোর করে নামাজে নেয়ার কথা বলে। এক পর্যায়ে জলিল শেখ উত্তেজিত হয়ে ধ্রুবকে তার ধর্মীয় ও পারিবারিক পরিচয় জানতে চায় এবং মারধর শুরু করে। পরে আশপাশের লোকজন এসে ধ্রুবকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এদিকে মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে ও অভিযুক্তের বিচার চেয়ে সচেতন যুব সমাজের ব্যানারে সোমবার দুপুরে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতিবাদ সভা করেছে স্থানীয়রা। প্রতিবাদ সভা থেকে তারা জানায়, অভিযুক্ত জলিল শেখ দীর্ঘদিন যাবত কারনে-অকারনে স্থানীয় অনেককেই নির্যাতন করে আসছেন। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে বৃদ্ধ ভ্যান বা রিক্সা চালক কেউই তার নির্যাতন থেকে রক্ষা পান না। অভিযুক্ত স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী ও বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হওয়ায় তার ব্যাপারে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না। তার কার্যকলাপ পুরোপুরিভাবে মানবাধিকার ও নাগরিক অধিকার বিরোধী। আমরা এঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার চাই।

এ ব্যাপারে নড়িয়া সার্কেল এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বলেন, আমরা অভিযোগটি আমলে নিয়েছি। এব্যাপারে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য

comments

শরীয়তপুর নিউজে প্রকাশিত কোন তথ্য, ছবি, রেখচিত্র, আলোকচিত্র ও ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যাবহার করা নিষেধ!!