এমপি হয়েই পানি সম্পদ উপমন্ত্রী হলেন এনামুল হক শামীম

4966

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে (গত ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮) শরীয়তপুর-২ আসন থেকে (২ লাখ ৭৩ হাজার ৩৭০ পেয়ে) বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন কেন্ত্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম। সংসদ সদস্য সাধ গ্রহণ করতে না করতেই হয়ে গেলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী।
স্থানীয় আওয়ামীলীগ সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন থেকে শরীয়তপুরে কোন মন্ত্রী নেই। ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর আব্দুর রাজ্জাককে মন্ত্রী বানানো হয়। তখন তিনি ২০০১ সাল পর্যন্ত পানি সম্পদ মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। এরপর শরীয়তপুরে কোন সাংসদ মন্ত্রী হতে পারেনি। ১৯ বছর পর উপমন্ত্রীর পদ পেলেন শামীম। মন্ত্রী হওয়ার খবর পেয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগসহ শরীয়তপুর জেলার মানুষ আনন্দে আপ্লুত হয়ে পড়েছে।
জানা যায়, এ কে এম এনামুল হক শামীম স্কুলজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৮৪ সালে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, ১৯৮৬ সালে জাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি, ১৯৮৯ সালে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে জাকসুর ভিপি নির্বাচিত হন। এরপর ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পর পর তিন বার সদস্য ও সহ-সভাপতি পদ লাভ করেন। ১৯৯৪ সালে তিনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্বাচিত হন। টানা ৪ বছর বছর তিনি সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। এ সময় বিএনপি-জায়ামাত জোট সরকারের হাতে বারবার নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। শামীম আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ-সম্পাদক নির্বাচিত হন একাধিকবার। ২০১২ সালে তাকে কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। বর্তমানে তিনি আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ চট্টগ্রামের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা।
এনামুল হক শামীম রাজনীতির পাশাপাশি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সাথে জড়িত রয়েছেন এবং একটি বেসরকারি ব্যাংকেও তার অংশীদারিত্ব রয়েছে। শামীমের হাত ধরে শুধু নড়িয়া-সখিপুরেই নয়, গোটা শরীয়তপুর জেলার শত শত দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থী ঢাকা শহরের নামিদামি অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বল্প খরচে লেখাপড়া করার সুযোগ পেয়েছে। তিনি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরে চাকরি প্রাপ্তির ক্ষেত্রেও সহায়তা করেছেন অনেককে।
এনামুল হক শামীম চট্টগ্রাম বিভাগের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দলীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে দলীয় নানা কর্মসূচী বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছেন। তিনি এলাকার নদী ভাঙনসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সহায়তা করছেন।
তরুন নেতা শামীম, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হওয়ায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ), শরীয়তপুর ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্ণালিষ্ট এ্যাসোসিয়েসশনসহ জেলার প্রিন্ট ও অনলাই পোর্টালের সাংবাদিকরা অভিনন্দন জানিয়েছেন।
নড়িয়া পৌরসভার মেয়র মো. শহিদুল ইসলাম (বাবু রাড়ী) বলেন, জেলায় একজন মন্ত্রী প্রয়োজন ছিল। মন্ত্রী না থাকলে উন্নয়ন কাজ ত্বরান্নিত হয় না। বড় প্রকল্পের উন্নয়ন করতে মন্ত্রীরা অনেক গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা নিয়ে থাকেন। আমাদের এ অঞ্চলের অভিভাবক এনামুল হক শামীম বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ি হয়েছেন। আমাদের প্রানপ্রিয় সভানেত্রী নতুন প্রজন্মের নেতা এনামুল হক শামীমকে উপমন্ত্রী পদ দিয়েছেন।
নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন বলেন, অবহেলিত শরীয়তপুরকে উন্নয়নের রোল মডেল করার ঘোষনা দিয়েছেন এনামুল হক শামীম। তার নির্বাচনে নানান প্রকল্পের প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে। ওই সকল প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে ভুমিকা রাখবেন এনামুল হক শামীম। যেহেতু তাকে মন্ত্রী করা হয়েছে, উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন সহজ হবে। তাকে মন্ত্রী করে আমাদের দাবী সফল করেছে প্রধানমন্ত্রী।
শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদার বলেন, জেলার উন্নয়ন ত্বরান্নিত করতে মন্ত্রী প্রয়োজন ছিল। একেএম এনামুল হক শামীমকে উপমন্ত্রীর দেয়া হয়েছে। আমরা আনন্দিত।
একেএম এনামুল হক শামীম বলেন, এলাকার মানুষের ভালোবাসায় আমি কৃতজ্ঞ। তাদের ভালবাসার কারনে বিপুল ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছি। তাদের প্রত্যাশা পুরনে সবসময়ে কাজ করব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা আমাকে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমি কৃতজ্ঞ। প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত উন্নয়ন মূলক কাজগুলো করে যেতে চাই।

::শেয়ার করুন::
Share on Facebook
Facebook
Share on Google+
Google+
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print
Email this to someone
email

মন্তব্য

comments