নড়িয়া-শরীয়তপুর সড়কের সংস্কার কাজের উদ্বোধন

183

সিনিয়র রিপোর্টার: নড়িয়া-শরীয়তপুর সড়কের সংস্কার ও প্রশস্তকরন কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুর আড়াইটায় নড়িয়া উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন সড়কে এ কাজের উদ্বোধন করেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি। প্রায় ৩২ কোটি টাকা ব্যয়ে ১২ কিলোমিটার শরীয়তপুর-নড়িয়া সড়ক সংস্কার ও প্রশস্তকরণ হবে। এরপরই তিনি নড়িয়া পৌরসভার জলাবদ্ধতা নিরসনে ৩১ লাখ টাকার পয়নিষ্কাশন কাজের উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধন শেষে উপমন্ত্রী বলেন, নড়িয়া উপজেলা শহরের সাথে শরীয়তপুর জেলা শহরের যোগাযোগের একমাত্র সড়কটির প্রশস্তকরণ কাজের উদ্বোধন করতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। কারণ এই সড়কটি অতি গুরুত্বপূর্ন একটি সড়ক। এই সড়ক দিয়ে নড়িয়া সখিপুরের মানুষ শরীয়তপুর মাদারীপুরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাতায়াত করে থাকে। ১২ ফিটের এ সড়কটি ৬ ফিট বাড়িয়ে ১৮ ফিটের করা হবে। সড়ক ও জনপদের অধীনে ৩১ কোটি টাকা ব্যয়ে আগামী ১ বছরের মধ্যে সড়কটির কাজ শেষ করার কথা রয়েছে। সড়কটি অতি গুরুত্বপূর্ন বিধায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আগামী ৮ মাসের মধ্যেই সড়কের কাজ শেষ করবে বলেছেন। সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রকৌশলীরা কাজের মান নিশ্চিত করবে। কাজে কোন অনিয়ম হলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না

উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম আরও বলেন, নড়িয়া পৌরবাসীর নাগরিক সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। তারই অংশ হিসেবে আজকে ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে নড়িয়া পৌরসভার জলাবদ্ধতা নিরসনে ড্রেনেজ ব্যবস্থা সংস্কার কাজের উদ্বোধন করা হলো। এর মাধ্যমে আশা করছি নড়িয়া পৌরবাসী জলাবদ্ধতা থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পাবে।

এ সময় সড়ক ও জনপদের নির্বাহী প্রকৌশলী সেলিম আজাদ খান, নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়ন্তী রূপা রায়, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান আলী রাড়ী, সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন, নড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহীদুল ইসলাম বাবু রাড়ী, নড়িয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির বেপারী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা মোস্তফা প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বেলা ১১টায় নড়িয়া মাতৃছায়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভা করেন উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম।

সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে উপমন্ত্রী শামীম বলেন, নড়িয়া উপজেলাকে পদ্মার ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য দ্রুত গতিতে নদী শাসনের কাজ এগিয়ে চলছে। এখানে প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ হাজার করে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। পদ্মা নদীর ডান তীর রক্ষা প্রকল্পের কাজও এগিয়ে চলছে। নদীর গতিপথ পরিবর্তনের জন্য দুইটি ড্রেজারের মাধ্যমে নদী খনন কাজ চলছে। আগামী বর্ষায় যাতে নড়িয়াবাসী আর ভাঙনের শিকার না হয় তার জন্য সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া গত বছর নদী ভাঙনের শিকার ৬ হাজার পরিবারকে পুনর্বাসনে কাজ করছে সরকার।

বিকেল ৪টায় নড়িয়া উপজেলার পন্ডিতসার উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম।

::শেয়ার করুন::
Share on Facebook
Facebook
Share on Google+
Google+
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Print this page
Print
Email this to someone
email

মন্তব্য

comments